ভিজিটর সংখ্যা

ই-বুক কালেকশন

প্রয়োজনীয় সব বাংলা 🕮 ই-বুক বা বই, 💻 সফটওয়্যার ও 🎬 টিটোরিয়াল কালেকশ সংগ্রহ করতে!

আপনারা সামান্য একটু সময় ব্যয় করে ,শুধু এক বার নিচের লিংকে ক্লিক করে এই কালেকশ গুলোর মধ্যে অবস্থিত বই ও সফটওয়্যার এর নাম সমূহের উপর চোখ বুলিয়ে 👓 👀 নিন।”তাহলেই বুঝে যবেন কেন এই ফাইল গুলো আপনার কালেকশনে রাখা দরকার! আপনার আজকের এই ব্যয়কৃত সামান্য সময় ভবিষ্যতে আপনার অনেক কষ্ট লাঘব করবে ও আপনার অনেকে সময় বাঁচিয়ে দিবে।

বিশ্বাস করুন আর নাই করুনঃ-“বিভিন্ন ক্যাটাগরির এই কালেকশ গুলোর মধ্যে দেওয়া বাংলা ও ইংলিশ বই, সফটওয়্যার ও টিউটোরিয়াল এর কালেকশন দেখে আপনি হতবাক হয়ে যাবেন !”

🎯বিস্তারিত 👀 জানতেঃ
এখানে 👆 ক্লিক
অথবা
এখানে👆ক্লিক করুন
অথবা
এখানে👆ক্লিক করুন

📲 মোবাইল থেকে বিস্তারিত
এখানে 👆 ক্লিক করুন

🎯সুন্দর ভাবে বুঝার জন্যঃ

📥 ডাউনলোড লিংকঃ

এখানে👆ক্লিক করুন

http://vk.com/doc229376396_437430568


📚🕮 eBook Page: এখানে👆ক্লিক
🎭eBooks Groups: এখানে👆ক্লিক
👓👀 Online Preview: এখানে👆ক্লিক

জনপ্রিয় পোস্টসমূহ

T@NB!R ব্লগ সংরক্ষাণাগার

Search

লোড হচ্ছে...
Blogger দ্বারা পরিচালিত.
Visit প্রয়োজনীয় বাংলা বইto get more interesting Computer and Educational Bangla Books

Gadget

এই সামগ্রীটি এখনও এনক্রিপ্ট করা সংযোগগুলির মাধ্যমে উপলব্ধ নয়।

📱মোবাইল দিয়ে পড়তে ও ডাউনলোড করতে যাদের সমস্যা হয়ঃ তারা নিচের লিংকে ক্লিক থেকে অ্যাপটা ডাউনলোড করে নেন... মোবাইলে বই পড়ার জন্য এটি একটি অনন্য অ্যাপ , একবার ইন্সটল করে দেখুন আশা এর সব ফিচার দেখে আপনি এই অ্যাপস এর ফ্যান হয়ে যাবেন । 📳মোবাইল স্ক্রিন ভার্সনে অর্থাৎ যে কোন সাইজের স্ক্রিনে অটোমেটিক এডজাস্ট হওয়া। (আপনাকে ডানে-বামে বা উপরে-নিচে মুভ করা লাগবে না) প্রয়োজনীয় সকল শিক্ষণীয় বাংলা বই 📚 ফ্রি তে পড়তে পারবেন , এই বইঘর Boighor এন্ড্রয়েড অ্যাপ খুব শিগ্রই সবার প্রিয় অ্যাপ হবে , কারন এতে আছে 🔖 বুকমার্ক মেনুঃ ক্লিক করে যে কোন অধ্যায়ে সরাসরি যেতে পারবেন, 🌙 নাইট মোড বা ভিউ, 🔍 বইয়ের 📑 মধ্যে যে কোন টেক্সট সার্চ করার সুবিধা, 📝 বইয়ের টেক্সটকে পছন্দমত হাইলাইট বা মার্ক , আন্ডারলাইন ✐ড্র করা যাবে (সো চিন্তা করে দেখুন এর চাইতে সহজ ও ইউজার ফ্রেন্ডলি কোন বাংলা বই পড়ার এন্ড্রয়েড অ্যাপ আছে কিনা!!! ) আর যে কোন লেখক ও পাবলিশারের একমাত্র নির্ভরযোগ্য অ্যাপ হবে , কারন আমাদের চেয়ে বেশি সিকুরিটি আর কেউ দিতে পারবে না ...ইনশাআল্লাহ
গুগল প্লে স্টোর গিয়ে " Boighor by chorui লিখে সার্চ দিন
এন্ড্রোয়েড অ্যাপ্লিকেশনে এখানের সব বই মোবাইল স্ক্রিনে পেতেঃ
এখানে👆ক্লিক করুন
https://play.google.com/store/apps/details?id=com.cgd.ebook.boighor

সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৩

postheadericon সংক্ষেপে বাংলাদেশের সম্পূর্ণ ইতিহাস... বিসিএস এর জন্য খুভ গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়

বাংলা শব্দটি এসেছে দ্রাবিড়দের বং/বঙ্গা উপজাতি হতে। বাংলাদেশের মূল অংশ বঙ্গোপসাগর থেকে জেগে উঠেছে। প্রাগৈতিহাসিক কাল থেকেই এর কিছু অংশে মানব বসতির অস্তিত্বের প্রমাণ পাওয়া যায়। প্রাচীন কাল থেকেই এখানে একটি স্বতন্ত্র ও বিশিষ্ট সংস্কৃতি টিকে ছিল।
মহাভারত থেকে জানা যায়, রাজা বালির পোষ্য সন্তান ভাঙ্গা নিজের নামে রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন। মহাভারত অনুযায়ী, অঙ্গ, বঙ্গ, কলিঙ্গ, পুণ্ড্র ও সুহ্ম - এই পাঁচটি পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতারা একই বংশের সন্তান রাজা বলির পুত্র ছিলেন। মহাভারতে পুণ্ড্র বা পৌণ্ড্র ভারতবর্ষের একটি রাজ্য হিসাবে বর্ণিত হয়েছে। পৌণ্ড্ররাজ্য বৈদিক আচার আচরণের বিরোধী ছিল। তাদের নিজস্ব উন্নত সংস্কৃতি ছিল যা বৈদিক সংস্কৃতি থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন ছিল।
মুসলিম সভ্যতার ইতিহাস থেকে জানা যায়, নবী নূহ আ:-এর ছয় পুত্র। তারা পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে উপনিবেশ গড়ে তোলেন। এর মধ্যে একজন ছিলেন হিন্দ্। এই হিন্দের নামানুসারে হিন্দুস্তানের নাম। হিন্দ্-এর চার পুত্র। তাদের এক ছিল বাং। বাং-এর সাথে আল্ / বাঁধ শব্দ যুক্ত হয়। যা জল প্লাবনের হাত থেকে জনপদ ও শস্যক্ষেত রক্ষা করতো। ‘সুলতান সামসুদ্দিন ইলিয়াস শাহ বঙ্গ শব্দের সাথে সংস্কৃত লাহ্‌ প্রত্যয় যুক্ত করে, বাংলা শব্দটির সুচনা করেন।
উয়ারি-বটেশ্বর অঞ্চলে ২০০৬ সালে প্রাপ্ত পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন অনুযায়ী বাংলাদেশে প্রায় ৪ হাজার বছর আগে জনবসতি গড়ে উঠেছিলো। দ্রাবিড় ও তিব্বতীয়-বর্মী জনগোষ্ঠী সেসময় বসতি স্থাপন করেছিল। পরবর্তীকালে অঞ্চলটি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র রাজ্যে বিভক্ত হয়ে স্থানীয় ও বিদেশীদের দ্বারা শাসিত হতে থাকে।
আর্যরা প্রথমে অনেক চেষ্টা করেও পুর্ব বাংলার অঞ্চল জয় করতে পারেনি। তাই, এই রাজ্যের অধিবাসীদের গালিগালাজ করে শ্লোক তৈরী করেছিলো।
আলেকজান্ডার বিশ্ব জয় করে বাংলার পশ্চিম প্রান্তে গঙ্গার পারে পৌছান তারপর তার জেনারেলরা তখনকার বাংলার(গঙ্গোরিধি) রাজার বিবরন শুনে আর আগানোর সাহস পান নাই। এই বাংলা অঞ্চল বিভিন্ন সময় বিভিন্ন গোষ্ঠী দ্বারা শাষিত হয়েছে। শাষকরা এসেছে, আবার চলে যেতে বাধ্য হয়েছে। আমরা রয়ে গেছি। আমাদের সম্পদ বলতে জমি আর আমি(মানবসম্পদ)। ব্রিটিশরা যখন বাংলাদেশে আসে, তখন বাংলা ছিলো বিশ্বের ৬ষ্ঠ সমৃদ্ধ অঞ্চল। চেস্টা করলে আবার কেন মাথা উচু করে দাড়াতে পারব না?

২০০০ বিসি(- ৪০০০ বছর)ঃ প্রায় চারহাজার বছরের পুরনো তাম্রযুগের ধ্বংসাবশেষ বাংলায় পাওয়া গেছে। গঙ্গা ও ব্রহ্মপুত্র নদ বাংলাকে ভারতের মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন করে রেখেছিল।

ভাষা পরিবার: Indo-European -> * ইন্দো-ইরানীয় -> o ইন্দো-আর্য -> + মাগধী প্রাকৃত -> # অপভ্রংশ অবহট্ঠ -> * বাংলা-অসমীয়া -> o বাংলা।
বাংলা ভাষার ইতিহাস তিন পর্যায়ে বিভক্ত:
প্রাচীন বাংলা (৯০০/১০০০ খ্রিস্টাব্দ – ১৪০০ খ্রিস্টাব্দ) — লিখিত নিদর্শনের মধ্যে আছে চর্যাপদ, ভক্তিমূলক গান; আমি, তুমি, ইত্যাদি সর্বনামের আবির্ভাব; ক্রিয়াবিভক্তি -ইলা, -ইবা, ইত্যাদি। ওড়িয়া ও অসমীয়া এই পর্বে বাংলা থেকে আলাদা হয়ে যায়।
মধ্য বাংলা (১৪০০–১৮০০ খ্রিস্টাব্দ) — এ সময়কার গুরুত্বপূর্ণ লিখিত নিদর্শন চণ্ডীদাসের শ্রীকৃষ্ণকীর্তন; শব্দের শেষে “অ” ধ্বনির বিলোপ; যৌগিক ক্রিয়ার প্রচলন; ফার্সি প্রভাব। কোন কোন ভাষাবিদ এই যুগকে আদি ও অন্ত্য এই দুই ভাগে ভাগ করেন।
আধুনিক বাংলা (১৮০০ খ্রিস্টাব্দ থেকে) — ক্রিয়া ও সর্বনামের সংক্ষেপন (যেমন তাহার → তার; করিয়াছিল → করেছিল)।

১০০০ বিসি(- ৩০০০ বছর)ঃ ইন্দো-আর্যরা আসার পর অঙ্গ, বঙ্গ এবং মগধ রাজ্য গঠিত হয়। এই রাজ্যগুলি বাংলা এবং বাংলার আশেপাশে স্থাপিত হয়েছিল। যার বর্ণনা প্রথম পাওয়া যায় প্রায় ১০০০ খ্রীষ্টপূর্বাব্দে, অথর্ববেদে

৭০০ বিসি(- ২৭০০ বছর)ঃ পুড্রবর্ধন, রাজধানিঃ মহাস্থান-গর (বর্তমান বগুরা)।

রবিবার, ১ ডিসেম্বর, ২০১৩

postheadericon মহাকাশ ও মহাবিশ্ব পরিচিতি ...। জানুন আপনার এই মহাকাশকে ...।



পৃথিবী আমাদের বাসভূমি। পৃথিবীর চারদিকে ঘিরে রয়েছে অসীম আকাশ। অসীম আকাশের দিকে তাকালে দিনে সূর্য এবং রাতে চাঁদসহ অসংখ্য আলোকবিন্দু চোখে পড়ে। সূর্য একটি নক্ষত্র এবং চাঁদ একটি উপগ্রহ। এই আকাশের শুরু ও শেষ নেই। আদি-অন্তহীন এ আকাশকে মহাকাশ বলে। মহাকাশে অসংখ্য জ্যোতিষ্ক রয়েছে। এরা সুশৃঙ্খলভাবে নিজস্ব কক্ষপথে নির্দিষ্ট গতিতে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এসব নক্ষত্র এবং এদের গ্রহ ও উপগ্রহকে বলে জ্যোতিষ্ক। এদের মধ্যে কোনো কোনোটার আলো আছে আবার কোনো কোনোটার আলো নেই। বর্তমানে চন্দ্র, সূর্য, গ্রহ, নক্ষত্র, ধূমকেতু, উল্কা,  নীহারিকা, পালসার, কৃষ্ণবামন (Black Dwarf), কৃষ্ণগহ্বর (Black Hole) প্রভৃতি সবকিছুকেই জ্যোতিষ্ক বলে। এদের সবাইকে নিয়ে গঠিত হয়েছে মহাবিশ্ব। মহাবিশ্ব যে কত বড় তা কেউ জানে না। কেউ জানে না মহাবিশ্বের আকার বা আকৃতি কেমন, অনেক বিজ্ঞানী মনে করেন মহাবিশ্বের শুরু ও শেষ নেই। কেউ কেউ এখনও বিশ্বাস করেন মহাবিশ্বের আকার ও আকৃতি আছে। মানুষ প্রতিনিয়তই মহাবিশ্ব সম্পর্কে নতুন নতুন তথ্য আবিষ্কার করছে, এর অনেক কিছুই এখনও অজানা রয়ে গেছে। এই অজানা হয়তো চিরকালই থাকবে।
নক্ষত্র (Stars)
যেসব জ্যোতিষ্কের নিজের আলো আছে তাদের নক্ষত্র বলে। রাতের আকাশে অনেক আলোক বিন্দু মিটমিট করে জ্বলতে দেখা যায়। আলো দেওয়া এসব জ্যোতিষ্ক হলো নক্ষত্র (চিত্র ২.১)। মহাকাশে অসংখ্য নক্ষত্র রয়েছে। খালি চোখে আমরা মাত্র কয়েক হাজার নক্ষত্র দেখতে পাই। এদের কয়েকটি পৃথিবী থেকে শক্তিশালী দূরবীক্ষণ যন্ত্রের সাহায্যে দেখা যায়। নক্ষত্রগুলো হলো জ্বলন্ত গ্যাসপিণ্ড, এরা হাইড্রোজেন ও হিলিয়াম গ্যাস দিয়ে তৈরি। এই গ্যাস অতি উচ্চ (প্রায় ৬০০০সেলসিয়াস) তাপমাত্রায় জ্বলছে। এদের সকলের নিজের আলো ও উত্তাপ আছে। সূর্য এমন একটি নক্ষত্র। পৃথিবী থেকে এর দূরত্ব অন্য সব নক্ষত্রের চেয়ে অনেক কম বলে একে এত বড় দেখায়।

পৃথিবী থেকে দেখলে মনে হয় নক্ষত্রগুলো যেন একই সমতলে অবস্থান করছে। কিন্তু পৃথিবী থেকে এরা বিভিন্ন দূরত্বে অবস্থান করছে। পৃথিবী ও নক্ষত্রদের মধ্যে এবং নক্ষত্রদের পরস্পরের মধ্যে দূরত্ব এত বেশি যে কিলোমিটার দ্বারা এই দূরত্ব প্রকাশ করা যায় না। এই দূরত্ব আলোক বর্ষ এককে মাপা হয়। আলো প্রতি সেকেন্ডে প্রায় ৩ লক্ষ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে। এই বেগে ১ বছরে যে পরিমাণ দূরত্ব অতিক্রম করে তাকে ১ আলোক বর্ষ বলে। সূর্য পৃথিবীর নিকটতম
নক্ষত্র। তাই এর দূরত্ব কিলোমিটার হিসেবে প্রকাশ করা যায়। সূর্য থেকে পৃথিবীতে আলো আসতে সময় লাগে ৮ মিনিট ১৯ সেকেন্ড। সুতরাং পৃথিবী ও সূর্যের মধ্যবর্তী দূরত্ব প্রায় ১৫ কোটি কিলোমিটার।

সূর্যের নিকটতম নক্ষত্র প্রক্সিমা সেন্টোরাই (Proxima Centauri)পৃথিবী থেকে এর দূরত্ব প্রায় ৪.২ আলোক বর্ষ যা প্রায় ৮ লক্ষ কোটি কিলোমিটারের সমান। এসব নক্ষত্রের আকার, আকৃতি, ঘনত্ব ও মহাকর্ষ বল বিভিন্ন হয়। কোনোকোনো নক্ষত্রের আকার গোল, কোনোটি সর্পিল, আবার কোনোটি অবয়বহীন। কোনোটির ঘনত্ব ও মহাকর্ষ বল অত্যধিক। কৃষ্ণগহ্বর ও কৃষ্ণবামনের ঘনত্ব খুব বেশি বলে এদের মহাকর্ষ বল অত্যন্ত বেশি।

postheadericon Common Mistakes in English speaking or writing



Wrong: He came back in Bangladesh.
Right: He came back to Bangladesh.

Wrong: I'd like to study in abroad/overseas.
Right: I'd like to study abroad/overseas.

Wrong: He drives his bike so fast.
Right: He rides his bike so fast.

Wrong: I don't know to drive a car.
Right: I don't know how to drive a car.

Wrong: They entered into the hall.
Right: They entered the hall.

Wrong: I understood her the question.
Right: I made her understand the question.

Wrong: He teaches very well, isn't it?
Right: He teaches very well, doesn’t he?

Wrong: You are hiding something, isn't it?
Right: You are hiding something, aren’t you?

Wrong: I would like to make a doctor.
Right: I would like to be/become a doctor.

Wrong: We had talked to him yesterday.
Right: We talked to him yesterday.

Wrong  We bought some furnitures.
Right: We bought some furniture.

Wrong: I cut my hair yesterday.
Right: I got my hair cut yesterday.

Wrong: If I am you, I will never do so.
Right: If Iwere you, I would never do so.

Wrong: I love listening music.
Right: I love listening to music.

Wrong: I missed my keys.
Right: I lost my keys.

postheadericon কম্পিউটার এর প্রাথমিক ধারনা Learning Computer



Computer শব্দটির অর্থ কি?

গ্রীক শব্দ “Compute” থেকে অধুনা Computer শব্দের উৎপত্তি। আবার ল্যাটিন শব্দ Computare ও থেকে Computer শব্দের উৎপত্তি।যার আর্থ গণনা করা, সেই দিক খেকে চিন্তাকরলে এর অর্থ গণনা কারী যন্ত্র বিশেষ। যেমন :- Calculator, Counter, Conductor.
                                                                                
কম্পিউটারের আবিষ্কার

চার্লস ব্যাবেজ  নামক একজন ইংরেজ গনিতবিদ ১৮৩০ সালে প্রথম এনালগ কম্পিউটার আবিষ্কার করেন।এরপর হাবাড বিশ্ববিদ্যালয়ের 'হাউয়ারর্ড একিন' একটি ম্যাকানিক্যাল কম্পিউটার তৈরী করেন। পড়বর্তীতে ডিজিটাল কম্পিউটার আবিষ্কৃত হয় যা ম্যাকানিক্যাল কম্পিউটার থেকে ২০০ গুন গতি সম্পন্ন এবং সেটি ধীরে ধীরে উন্নত হয়ে আজকের কম্পিউটার।লর্ড বায়রনের মেয়ে 'লেডী এ্যাডা আগাসটা' পৃথিবীর প্রথম কম্পিউটার প্রোগ্রামারটি তৈরী করেন। 
কম্পিউটার এর সংজ্ঞা ঃ
কম্পিউটার হলো একগুচ্ছ বৈদুতিক তরঙ্গকে নিজস্ব সংকেতে রুপান্তর করে ব্যবহারকারী কর্তৃক প্রয়োগকৃত কমান্ডের সাহ্যাযে্য উদ্ভূ সমস্যার সমাধান করে থাকে"।

কম্পিউটারের বৈশিষ্ট :

কম্পিউটার নির্ভুল ফলাফল ,দ্রুতগতি, ডাটা সংরক্ষন, স্বয়ংক্রিয় কর্মক্ষতা, সহনশীলতা, স্মৃতি বা মেমরী, ইত্যাদি বৈশিষ্ট বিদ্যমান।
কম্পউটারের ব্যবহার :
ঘর থেকে শুরু করে অফিস-আদালত এমন কোন জায়গায় খুজে পাওয়া যাবে না যেখানে কম্পিউটার ব্যবহার হয় না, অফিসের কাজে , ব্যবসার-বাণিজে্য, স্কুলে-কলেজে-বিশ্ববিদ্যালয়ে, বিভিন্ন ধরনের
প্রোজেক্ট , শিল্প-কারখানায়, খেলাধুলা,চিত্তবিনোদনে, দোকান পাট, ব্যাং-ইন্সুরেন্স কোম্পানী, আবহাওয়া অফিস, মহাশুন্য স্টেশন-ইত্যাদি সকল ক্ষত্রে  কম্পিউটার ব্যবহার হয়।
Computer এর শ্রেণী বিভাগ ?

কাজের পরিমাপ অনুজায়ী কম্পউটারকে ৩ টি শ্রেণীতে বিভক্ত করা হয়েছে :
  1: Digital Computer
  2: Analog Computer
  3: Hybrid Computer
Digital Computer:

গানিতিক ও যুক্তিগত কাজে এই ধরণের কম্পিউটার বেশি বব্যহৃত হয়ে থাকে। বর্তমানে বাজারে প্রচলিত প্রায় সকল কম্পিউটারই ডিজিটাল কম্পিউটার । আকার ও ক্ষমতা অনুসারে ডিজিটাল কম্পিউটারকে পাচ ভাগে ভাগ করা যায়:

  1. Grid Computer
  2. Super Computer
  3. Mainframe Computer
  4. Mini Computer
  5. Micro Computer

আমরা সাধারনত যেধরনের  কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকি সেগুলো হচ্ছে micro computerমাইক্র কম্পিউটার কে আবার ৬ টি ভাগে বিভক্ত।যেমন :-

  1. Desktop Computer
  2. Laptop Computer
  3. Palmtop Computer
  4.  Notebook Computer
  5. Pocket Computer
  6. Home Computer

Analog Computer:

গ্রাফ/চিত্রে ফলাফল অর্জন কর হয় এই ধরনের কম্পউটারের মাধ্যেম।তেল শোধনাগারে তেল উৎপাদনের হিসাব, বিদু্যৎ উৎপাদন কেন্দ্রে বিদু্যৎ উৎপাদনের হিসাব, ইত্যাদি কাজে এনালগ কম্পিইটার ব্যবহার করা হয়।

Hybrid Computer:

বৈজ্ঞানিক জটিল সমস্যার সমাধানে এ ধরনের কম্পিউটার কার্যকরি ভুমিকা অবলম্বন করে। পারমানুবিক শক্তি উৎপাদন প্লান্ট. মহাকাশযান, যুদ্ধে ক্ষেপনাস্ত্র নিক্ষেপ করার কাজে এই ধরনের কম্পিউটার  বব্যহার করা হয়।
...........................................................................................................................................

postheadericon ইম্পরট্যান্ট ওয়েবসাইট কালেকশন ......।

গুরুত্বপূর্ণ কিছু ওয়েব সাইট
বাংলাদেশ সরকার
বাংলাদেশের জেলাগুলোর সরকারী ডিরেক্টরি
আমার হেলথ (স্বাস্থ্য বিষয়ক)
বাংলার পরিবেশ (পরিবেশ বিষয়ক)
বাংলাদেশের পাখি
রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন
মৃত্তিকা
দ্রোহ
উইকিপিডিয়া (বাংলা)
গান ডাউনলোড
বই ডাউনলোড
কৌতুক
আইন ক্রনিকল
ইএসপিএন ক্রিকইনফো
রেফারেন্স
অনলাইন বাংলা অভিধান
বাংলা থেকে ইংরেজী
অনুবাদক অনলাইন
অভ্র থেকে বিজয়
বাংলা কনভার্টার
বইমেলা
বাংলা ব্লগস ডিরেক্টরি


রেফারেন্সঃ
প্রজেক্ট গুটেনবার্গ
বাংলা-পিডিয়া
Encyclopaedia Britannica
Encyclopaedia Mythica
Geography
Woodlands Junior School
Kidz.bdnews24.com


postheadericon বিভিন্ন পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওয়েবসাইটের লিঙ্কঃ



এবার বেশির ভাগ বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করতে হচ্ছে অনলাইনের মাধ্যমে। তাই বিভিন্ন পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওয়েবসাইট নিচে দেওয়া হলোঃ

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওয়েবসাইট


postheadericon Article এর ব্যবহার শিখুন সবচেয়ে সহজে ...ও মনে রাখার শর্টকাট টেকনিক

A, An, The: Article a, an, the এর ব্যবহার মূলত নির্ভর করে এর পরের nounটির pronunciation (উচ্চারণের) উপর এগুলোকে আবার determiner বলা হয়। নিচে a, an, the এর ব্যবহার দেওয়া হলঃ

Article "a" এর ব্যবহার
Consonant sound (a, e, i, o, u বাদে অন্য ইংরেজি বর্ণমালা গুলো consonant sound প্রকাশ করে) এর পূর্বে article “a” বসে। মনে রাখবেন countable noun consonant sound মানে “a”. A baseball, a boy, a car etc.

Vowel দ্বারা শুরু হওয়া শব্দের উচ্চারণ যদি (yu) ইউ এর মত হয় তবে article A বসে। যেমনঃ a university (ইউনিভার্সিটি), a unit, a ewe, a European.

“O” vowel এর উচ্চারণ যদি (wa) ওয়া এর মত হয় তবে article “a” বসে। যেমনঃ A one(ওয়ান), a one-taka note, a one-eyed deer.


Article "an" এর ব্যবহার
Singular countable noun এর প্রথম বর্ণ যদি vowel (a, e, i, o, u)দ্বারা শুরু হয়। যেমনঃ an ant, an egg, an idiot.

প্রথম বর্ণ consonant দ্বারা শুরু হওয়া স্বত্বেও vowel sound প্রকাশ করলে। an M.A(M:এম-AM), an LLB(L:এল-AL), an SDO(S: এস-AS) etc.

H দ্বারা শুরু হওয়া শব্দে “h” উচ্চারিত না হয়ে vowel sound উচ্চারিত হলে। যেমনঃ an hour(আওয়ার), an heir(এয়ার), an honest(অনিষ্ট) man ইত্যাদি।



 Article "the" এর ব্যবহার
কোন noun কে নির্দিষ্ট করে বুঝাতে তার পূর্বে definite article “the” বসে। অর্থাৎ যার সম্পর্কে পূর্বে বলা হয় অথবা দ্বিতীয় বার কোন ব্যক্তি বা বস্তু সম্পর্কে বলা হলে তার পূর্বে article “the” বসে। যেমনঃ This is a nice picture. Give me the picture.

Uncountable noun এর পূর্বে article হয় না। তবে noun ব্যবহারের সূত্র অনুযায়ী uncountable noun এর পূর্বে the বসতে পারে।


Cardinal number (1,2,3……..) পূর্বে article বসে না। Cardinal number এর কথা বললে ক্যালেন্ডারের কথা মনে করুন। আর ক্যালেন্ডারে ১,,৩...সংখ্যা হিসাবে তারিখ থাকে।  ক্যালেন্ডারে তারিখের সংখ্যা আর  Cardinal number সংখ্যার প্রকাশ একিই এবং এর পূর্বে article বসে না। যেমন one, two, three……. ইত্যাদি।  অপরপক্ষে first, second, third…. ইত্যাদি ordinal number এবং ordinal number এর পূর্বে the বসে। যেমনঃ The first, the second, the third ইত্যাদি।


নিন্মের কবিতার শব্দগুলোর আগে article the বসে। 

চন্দ্র, সূর্য, সাগর, মহাসাগর আর নদী,
পর্বতশ্রেণী, দ্বীপপুঞ্জ, উপসাগর থাকে যদি,
উত্তর,দক্ষিণ, পূর্ব, পশ্চিম মিলে এই পৃথিবী,
জাতি, সম্প্রদায়, ধর্মগ্রন্থ, পত্রিকায় লিখলেন কবি।
জাহাজ, তারিখ আর ভৌগলিক নাম-
এর আগে The এর ব্যবহার হয় সহজে জানলাম।
যেমনঃ the moon, the sun, the Red Sea, the Atlantic Ocean,  the Padma, the Himalayas, the Persian Gulf, the north, the south, the east, the west, the earth, the Indians, the Muslims, the holy Quran, the Daily Star, the Amir, the 24th October                                                                                        the  U.S.A, the United Kingdom.  

 আমার সংগ্রহের সকল ই-বুক বা বই , সফটওয়্যার ও টিউটোরিয়াল এর কালেকশন একসাথে পেতে চাইলে…
এখানে ক্লিক করুন আপনার ও আপনার ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাজে লাগবে... জাস্ট সংগ্রহে রেখে দিন ...


যেসব স্থানে Article বসে না

a/an অনির্দিষ্ট একটি মাত্র ব্যক্তি বা বস্তুর ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। তাই plural word এর পূর্বে article a/an বসে না। শুধু মাত্র singular এবং অনির্দিষ্ট ব্যক্তি/ বস্তুর ক্ষেত্রে a/an ব্যবহৃত হয়। যেমনঃ a book, a pen, an apple ইত্যাদি। 
যেসব noun এর কোন plural form নেই বা যাদের সাথে s/es যুক্ত হয়ে plural হয় না সেসব  word এর পূর্বেও  article বসে না। নিন্মের কবিতার মাধ্যমে word গুলো মনে রাখুন নিন্মের word গুলোর পূর্বে কোন article বসে না।
ভাষা(bangla, French etc),খাদ্য (bread, meat etc), গ্যাস (oxygen, hydrogen etc) আর রোগব্যধি (malaria, cancer, AIDS)
অদৃশ্য (information, advice), তরল বস্তু (tea, soup,oil), ক্ষুদ্র কনা(sand, rice, flour) থাকে যদি,
পাঠ্য বিষয় (physics, history, chemistry), প্রাকৃতিক বস্তু (sunshine, darkness), খেলাধুলা (football, cricket,chess)
এসব বিষয় non count – করোনা অবহেলা
যেমনঃ bread,    wood,       oil,    rice etc.
breads×, a wood×, one oil ×, rice are× is eaten by me.  

বিভিন্ন প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষায় আসা কিছু গুরুত্বপূর্ণ উদাহরণ
He learned (×: no article) English when he was in the USA.
My neighbor is a photographer, let’s ask him for (×: no article) advice about color films
He is a European.
I only want a little sugar in my tea. Please. 
 Metre is a unit of length. 
 (×: no article) AIDS virus infection is incurable.
 He leads a comfortable life.
 He made a few mistakes.
 (×: no article) Agriculture is an important activity in Bangladesh.
I need a piece of soap to wash my dress with.
 (×: no article) Scenery is not the only thing that tourists want to see.



সীমিত ইন্টারনেট প্যাকেজের ও নেটের স্লো স্পিড়ের জন্য যারা এই ফাইল গুলো অথাবা আমার অন্যান্য ফাইল ডাউনলোড করতে পারছেন না ...!অথবা যারা ব্যস্তাতার জন্য ডাউনলোড করার সময় পাচ্ছেন না……
অথবা এতগুলো ফাইল একটা একটা করে ডাউনলোড করতে যাদের বিরক্তিকর মনে হয় …তারা নিচের লিংকে দেখুন …আশা করি আপনারা আপনাদের সমাধান পেয়ে যাবেন......

এখানে ক্লিক করুন

 আমার সংগ্রহের সকল ই-বুক বা বই , সফটওয়্যার ও টিউটোরিয়াল এর কালেকশন একসাথে পেতে চাইলে…
এখানে ক্লিক করুন আপনার ও আপনার ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাজে লাগবে... জাস্ট সংগ্রহে রেখে দিন ...

 বাংলা ই-বুক, সফটওয়্যার ,শিক্ষণীয় তথ্য ও বিভিন্ন টিপস সম্পর্কে আপডেট পেতে চাইলে “বাংলা বইয়ের [ প্রয়োজনীয়_বাংলা_বই _Useful -Bangla- e-books ] এই ফেসবুক পেজে “লইক like দিতে পারেন …
জাস্ট এই পেইজের সাম্প্রতিক পোস্ট সমূহ দেখুন … তারপর চিন্তা করুন লাইক দেওয়া উচিত কিনা এই পেইজে বর্তমান ফ্যান সংখ্যা 600,000+
নতুন বাংলা বই ও প্রয়োজনীয় তথ্য নিয়মিত আপনার ফেসবুক ওয়ালে আপডেট পেতে চাইলে ...কষ্ট আমাকে ফলো করে রাখুন ...
www.facebook.com/tanbir.cox

প্রয়োজনীয় সব বাংলা 🕮ই-বুক

প্রয়োজনীয় সব বাংলা 🕮ই-বুক বা বই, 💻সফটওয়্যার ও 🎬টিটোরিয়াল কালেকশ সংগ্রহ করতে!
আপনারা সামান্য একটু সময় ব্যয় করে ,শুধু এক বার নিচের লিংকে ক্লিক করে এই কালেকশ গুলোর মধ্যে অবস্থিত বই ও সফটওয়্যার এর নাম সমূহের উপর চোখ বুলিয়ে 👓👀 নিন।”তাহলেই বুঝে যবেন কেন এই ফাইল গুলো আপনার কালেকশনে রাখা দরকার! আপনার আজকের এই ব্যয়কৃত সামান্য সময় ভবিষ্যতে আপনার অনেক কষ্ট লাঘব করবে ও আপনার অনেকে সময় বাঁচিয়ে দিবে।
বিশ্বাস করুন আর নাই করুনঃ-“বিভিন্ন ক্যাটাগরির এই কালেকশ গুলোর মধ্যে দেওয়া বাংলা ও ইংলিশ বই, সফটওয়্যার ও টিউটোরিয়াল এর কালেকশন দেখে আপনি হতবাক হয়ে যাবেন !”
আপনি যদি বর্তমানে কম্পিউটার ব্যবহার করেন ও ভবিষ্যতেও কম্পিউটার সাথে যুক্ত থাকবেন তাহলে এই ডিভিডি গুলো আপনার অবশ্যই আপনার কালেকশনে রাখা দরকার !
মোট কথা আপনাদের কম্পিউটারের বিভিন্ন সমস্যার চিরস্থায়ী সমাধান ও কম্পিউটারের জন্য প্রয়োজনীয় সব বই, সফটওয়্যার ও টিউটোরিয়াল এর সার্বিক সাপোর্ট দিতে আমার খুব কার্যকর একটা উদ্যোগ হচ্ছে এই ডিভিডি প্যাকেজ গুলো।আশা করি এই কালেকশন গুলো শিক্ষার্থীদের সকল জ্ঞানের চাহিদা পূরন করবে…!
আমার আসল উদ্দেশ্য হল, কম্পিউটার ও মোবাইল এইডেড লার্নিং ডিভিডি কার্যক্রম এর মাধ্যমে সফটওয়্যার, টিটোরিয়াল ও এইচডি কালার পিকচার নির্ভর ই-বু বা বইয়ের সহযোগিতায় শিক্ষাগ্রহন প্রক্রিয়াকে খুব সহজ ও আনন্দদায়ক করা।
এবং সকল স্টুডেন্ট ও টিচারকে কম্পিউটার ও মোবাইল প্রযুক্তির সম্পৃক্তকরণ এবং সকল শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের প্রযুক্তিবান্ধব করা এবং একটা বিষয় ক্লিয়ার করে বুঝিয়ে দেওয়া যে প্রযুক্তি শিক্ষাকে আনন্দদায়ক করে এবং জ্ঞান অর্জনের প্রতি আকর্ষণ বৃদ্ধি করে…
🎯 কালেকশ সম্পর্কে বিস্তারিত 👀জানতেঃ নিচের লিংকে 👆ক্লিক করুন
www.facebook.com/tanbir.ebooks/posts/777596339006593

এখানে👆 ক্লিক করুন

🎯 সুন্দর ভাবে বুঝার জন্য নিচের লিঙ্ক থেকে ই-বুক্টি ডাউনলোড করে নিন...
📥 ডাউনলোড 👆 লিংকঃ এখানে👆ক্লিক

আপডেট পেতে

আপডেট ই-বুক

Google+

Email পেতেঃ

মন্তব্য দিন